1. [email protected] : editorpost :
  2. [email protected] : jassemadmin :

জেনে নিন বিল্ডিং তৈরীতে টাইলসের সমস্ত হিসাব!

বিল্ডিংয়ের সৌন্দর্যবর্ধন ও স্থায়ীত্ব বাড়াতে আমরা অনেকেই টাইলসের ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু টাইলসের সঠিক হিসাব না জানার কারনে অনেক সময় আমাদের বাজেট থেকেও বাড়তি অনেক খরচ হয়ে যায়। সেই সাথে ফিনিশিং সৌন্দর্য ফুটিয়ে তোলার ব্যাপার তো থাকছেই। চলুন জেনে নেওয়া যাক বিল্ডিং এর অন্যতম ফিনিশিং আইটেম টাইলস নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য! যা জেনে রাখা উচিত।
.
এখন বিভিন্ন প্রকার টাইলস ব্যবহার হয়। যেমন:- ১। ফ্লোর ও ওয়াল টাইলস ২। রাস্টিক টাইলস ৩। পেভম্যান্ট টাইলস ৪। সিরামিক্স টাইলস ৫। সিটি-৫ টাইলস বা বির্ক। বিভিন্ন সাইজের টাইলস বাজারে পাওয়া যাই ফ্লোর ১২”x১২, ১৬”x১৬”, ২০”x২০”, ২৪”x২৪”,৩২”x৩২”,২৪”x৪৮” ইত্যাদি। ওয়াল ৮”x১২”, ১০”x১৩”, ১০”x১৬”, ১২”x১৮”, ১২”x২০”, ১২”x২৪”, ১২”x৪৮” এছাড়া চায়না অনেক প্রকার ওয়াল টাইলস পাওয়া যায়।টাইলসের ব্যবহা করার আগে থেকেই যে সব প্রস্তুতি নিতে হয়। ধাপ গুলো দেয়া হল”-

ওয়াল টাইলস: টাইলস ওয়ালের হলে সর্ব প্রথম টাইলস গুলো পানিতে ভেজান ১২ ঘন্টা কারন ইটের মত এগুলো ও পানি শোষন করে। ওয়াল ভেজান প্রয়োজন মত যেন ওয়াল টাইলসের মসলার পানি শোষন করতে না পারে। দেয়ালের বাড়তি ইট গুলো ভেংগে নিন আর রাফ হিসাব করে দেখেন পূর্ন টাইলস কোথায় পড়বে আর শর্ট পিস কোথায় পড়বে

শর্ট পিস সব সময় দরজার পিছনে দেবেন যাতে দরজা খুললে ঢাকা পড়ে যায়। স্যনিটারি লাইন পানি দিয়ে চেক করুন লিকেজ আছে কিনা বা প্রেসার কেমন না হলে পরে টাইলস ভাংগা লাগবে। মসলা তৈরী করতে হবে ১:৪ ক্ষেত্র বিশেষে ১:৩ ও করা হয় এর পর দেয়ালে পায়া বা লেভেল করুন আর টাইলস লাগানো শুরু করুন। খেয়াল রাখবেন সব টাইলস যেন সমান হয় আর ২ টাইলস এর মাঝে ১ সুতা ফাকা থাকে

টাইলস এর নীচে মসলা ঠিক মত মানে পুরো টাইলসএই যেন মসলা লাগানো হয় অন্যথা শুকালে আওয়াজ করবে আর অল্প আঘাতেই ওই অংশ ভেঙ্গে পড়বে। টাইলস সময়ই মার্কিন কাপড় দিয়ে অবশ্যই পরিস্কার করে নেবেন সাথে সাথে না হলে করার পরে উঠবেনা বা অতিরিক্ত ঘষাঘষিতে টাইলস ডিসকালার বা ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

শর্টপিস করার সময় টাইলস কার্টার দিয়ে খুব সাবধানে কাটতে হবে অন্যথা টাইলসের নিকেল উঠে যাবে। মসলার থিকনেস ১/২” থেকে ক্ষেত্র বিশেষে ১” পর্যন্ত এলাও তবে সব নির্ভর করবে ওয়ালের লেভেলের উপর। টাইলস করার ১২ ঘন্টা পর থেকে কিউরিং করবেন। ৫/৭ দিন পর টাইলস ধুয়ে শুকিয়ে ফাঁকা জায়গাগুলোতে ফুটিং করবেন এর পূর্বে করলে মসলার ভেতরকার গ্যাস বের হতে নানা পারলে টাইলস ফেটে যাবে।

ওয়াল টাইলস সব সময় উপর থেকে নীচের দিকে করে আসলে টেকনিক্যলি সুবিধা পাওয়া যায়। টাইলস নির্বাচনের সময় অবশ্যই সমান মাপের টাইলস নির্বাচন করবেন এবং একই রকমের টাইলস একবারে কিনে ফেলবেন।

ফ্লোর টাইলস: ফ্লোর টাইলস অনেকটা সহজ আবার কঠীন ও প্রথমে ফ্লোর চিপিং কর এবং ধুয়ে পরিস্কার করে পাতলা সিমেন্ট গ্রাউটিং করতে হবে পুরোনো ফ্লোর হলে। যদি হোমোজিনিয়াস টাইলস হয় তবে টাইলস ভেজানোর দরকার নেই শুকনা মশলা ১:৩ রেশিওতে বানাতে হয় কারন ফ্লোরে অনেক কিছুর লোড পড়ে ও ব্যবহার হয় বেশী। যথারিতি স্যনিটারী লাইন যদি নীচ দিয়ে যায় তবে লিকেজ ও প্রেসার চেক কর এর পর লেভেল পায়া কর।

দরজার নীচে যেন ১/২” ক্লিয়ার থাকে সে মত পায়া হবে এর পর শুকনা মশলা ফ্লোরে ছড়িয়ে দিয়ে এর উপর টাইলস বসিয়ে লেভেল কর প্রয়োজন মত উঠানো, নামানো, সরানো যা প্রয়োজন করবে এর পর লেভেল ওকে হলে টাইলস সরিয়ে সিমেন্ট পানি মিশ্রিত গ্রাউটিং শুকনা মসলার উপর দিয়ে ঢেলে ভেজা বানাইয়ে নিয়ে মাঝে মাঝে কর্নি দিয়ে উক্ত মসলা কেটে কেটে রাফ করে দিবে এর পর টাইলস বসাতে হবে, প্রয়োজন মত রাবার হেমার দিয়ে হালকা হিট কর এবং লেভেল ফাইনাল কর ঠিক আগের নিয়মে ফাকা,পরিস্কার, কিউরিংকরতে হবে।

সব টাইলস যেন এক লাইনে থাকে শর্টপিস যেন দৃষ্টি কটু না লাগে এরুপ ব্যবহার করবে আর বাথরুম হলে স্লোপ দিতে হবে খুব ক্লোজ করে ধর ৫ ‘ এ ১”। ফ্লোর টাইলস এর মসলার পুরুত্ব ফ্লোর লেভেলের উপর নির্ভর করবে তাই ছাদ ঢালাইয়ের সময় ই ছাদের টপ লেভেল সমান রাখতে হবে নতুবা টাইলস করার সময় মসলার পুরুত্ব বেড়ে যাবে এতে লোড ও নির্মান ব্যয় বেড়ে যাবে

১ থেকে ১.৫” পুরুত্ব ফ্লোরের ক্ষেত্রে এলাওবেল। বাথরুম কিচেনের বেলায় কমোডের অংশ,ওয়েষ্ট ওয়াটার পাইপের জায়গা,ফিটিংসের,ও হাউস, বার্নার স্ল্যাব এর জায়গায় টাইলস লাগাতে বিশেষ সতর্ক থাকতে হবে আর কোনার টাইলস জয়েন্টে দুটো টাইলস আর সাইড গুলো V শেইপে কেটে নেবে একে মুখোমুখি মিলে যাবে একে টাইলসের চোজ করা বলে।

টাইলস হিসাব: কত পিচ টাইলস লাগবে? ফ্লোর: ১৫০০ বর্গফুট জায়গায় টাইলস লাগাতে হবে তাহলে ৮% ওয়েস্টেজ সহ মোট পরিমান ১৬২০
বর্গফুটটাইলসের সাইজ ১২”x১২” হলে একটি টাইলসের এরিয়া (১২”x১২”)÷১৪৪ = ১ বর্গফুট, টাইলসের সংখ্যা= ১৬২০÷১= ১৬২০ পিচ.টাইলস

ওয়াল: ওয়াল টাইলসে আমরা ১০% ওয়েজস্টেজ ধরি তাহলে টাইলসের পরিমান= ১৫০০x১.১০ = ১৬৫০ বর্গফুট, টাইলসের সংখ্যা= ১৬৫০÷১= ১৬৫০ পিচ.টাইলস।

টাইলস এর জন্যে মসলার হিসাব: ওয়ালে আমরা ১” পুরুত্ব মসলা ধরে থাকি। ওয়ালে মসলার অনুপাত (১:২)। ফ্লোরে আমরা ১.৫” পুরুত্ব মসলা ধরে থাকি, ফ্লোরে মসলার অনুপাত (১:৩)। ১৫০০ বর্গফুট ওয়াল টাইলসের মালামাল বের করবো প্লাষ্টারের ভেজা মসলার পরিমান = ১৫০০x(১”÷১২) = ১২৫ ঘনফুট, শুকনা মসলার পরিমান = ১২৫x১.৫ = ১৮৭.৫০ অনুপাতের যোগফল = (১+২)=৩ মালামাল সিমেন্ট = (১৮৭.৫০x১÷৩)x০.৮ = ৫০.০০ ব্যাগ বালি = (১৮৭.৫০x২÷৩)= ১২৫.০০ ঘনফুট

তথ্যসূত্র: ড্রিম হাউস ডিজাইন এন্ড কনস্ট্রাকশন।

More News Of This Category