1. [email protected] : editorpost :
  2. [email protected] : jassemadmin :

আমাদের দরকার সাহস

আমাল ক্লুনি একজন স্বনামধন্য ব্রিটিশ আইনজীবী। মানবাধিকার প্রসঙ্গে তাঁর কণ্ঠ সব সময় সোচ্চার। এ বছর ১০ মে যুক্তরাষ্ট্রের ভেনডারবিল্ট ইউনিভার্সিটির সমাবর্তনে সংক্ষিপ্ত বক্তৃতা দিয়েছেন তিনি।

সাহসকে সংক্রামক বলা হয়। ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের নানা প্রান্তে যাঁদের সমাজ বদলে দেওয়ার মতো সাহস আছে, তাঁরা অন্যকেও সাহসী হতে অনুপ্রাণিত করেন। তাঁরা পরবর্তী প্রজন্মের অধিকার নিশ্চিত করেন।

ভেনডারবিল্টের এই সমাবর্তন যদি ১০০ বছর আগে হতো, আমরা হয়তো এখানে গুটিকয়েক নারী শিক্ষার্থী দেখতে পেতাম। যদি ৬০ বছর আগে হতো, তাহলে হয়তো এখানে কোনো আফ্রো–আমেরিকান শিক্ষার্থী থাকত না।

এখনো অনেক কিছু করার বাকি। তবু ধন্যবাদ দিতে চাই সেই সাহসী মানুষদের, যাঁরা পদক্ষেপ নিয়েছিলেন বলে আমরা এই পরিবর্তনগুলো পেয়েছি। ধন্যবাদ দিতে চাই সেই সাহসী শিক্ষার্থীদেরও, যারা আমার সামনে বসে আছ।

আজ যখন পৃথিবীর দিকে তাকাই, বুঝতে পারি, আমাদের সবচেয়ে বেশি যা প্রয়োজন, তা হলো সাহস। যখন পৃথিবীর নানা প্রান্তে নারীরা শারীরিক হেনস্তার শিকার হয়; কর্মক্ষেত্র, ভ্রমণ বা সম্পত্তির মালিকানার ক্ষেত্রে নারীদের ওপর নানা বাধা–নিষেধ আরোপিত হয়, তখন সাহসই তো আমাদের সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন।

যখন গত তিন দশকের তুলনায় অনেক বেশি সাংবাদিকের স্থান হয় জেলখানা, হোয়াইট হাউস থেকেও যখন সংবাদপত্রের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা হয়, তখনই আমাদের সাহসী হওয়া সবচেয়ে বেশি জরুরি হয়ে পড়ে।

যখন আমাদের নেতারা শরণার্থী আর সন্ত্রাসী শব্দ দুটো গুলিয়ে ফেলেন, আমাদের একে অপরের প্রতি ভীত করে তোলেন, তখনই আমাদের দরকার হয় সাহস। আমাদের সেসব তরুণকে দরকার, যারা সাহসের সঙ্গে এগিয়ে আসবে। বলবে, এটা আমাদের পৃথিবী এবং আমরা কিছু পরিবর্তন চাই।

আজ আমি এসেছি একটা কথা বলতে। তোমরা এখান থেকে বের হয়ে কী করবে, কী হবে, দেখার জন্য আমি অধীর হয়ে অপেক্ষা করছি। কিন্তু আপাতত এটুকুই বলব, ২০১৮ সালের ক্লাস, অভিনন্দন। ধন্যবাদ। সূত্র: ভেনডারবিল্টের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট

More News Of This Category