1. [email protected] : editorpost :
  2. [email protected] : jassemadmin :

অল্প পুঁজির লেপ তোষকের ব্যবসা!

আপনি কি কম পুঁজির ব্যবসার ধরনা খুঁজছেন? কম বিনিয়োগের মধ্যে লাভজনক ব্যবসা হিসাবে শুরু করতে পারেন লেপ তোষকের ব্যবসা। ব্যবসাটি ধীর গতির হলেও লস নেই। সঠিক জায়গা নির্বাচন এই ব্যবসার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

লেপ তোষক আবহমান কাল ধরেই মানুষের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ। বিশেষ করে শীত কাল আসলে লেপ তোষকের গুরুত্ব বহু গুণে বেড়ে যায়। শীত নিবারণ ও কিছুটা আরামে ঘুমানো এবং বিশ্রামের জন্য সকল শ্রেণী ও পেশার মানুষই লেপ তোষক দ্বারা তাদের বিছানা আবৃত করে থাকে।

ব্যবসার দিক বিচারে লেপ তোষক দোকান হতে পারে একটি দুর্দান্ত ব্যবসার ধারণা। কেননা, লেপ তোষকের চাহিদা ও স্বল্প মানের পুজিঁ বিনিয়োগ ইত্যাদি বিবেচনায় এটি বর্তমানে খুবই জনপ্রিয় ও লাভ জনক একটি ব্যবসা ক্ষেত্র। সৎ ও কর্মনিষ্ঠ যে কোন উদ্যোক্তা এই ব্যবসাটি শুরু করে সফল হতে পারেন।

কোথায় লেপ তোষকের দোকান দিবেন: অনেক মানুষের সমাগম হয় ও যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো এমন কোন বাজারে বা মার্কেটে ছোট একটি দোকানে এই ব্যবসাটি শুরু করা যায়।

কেন লেপ তোষকের দোকান ব্যবসা শুরু করবেন: এটি একটি সহজ ব্যবসার ধারণা। এই ব্যবসাটি শুরু করতে তেমন কোন ঝামেলা পোহাতে হয় না। এই ব্যবসাটি শুরু করতে স্বল্প মূলধন বিনিয়োগই যথেষ্ট। এটি একটি লাভ জনক ব্যবসা খাত। সারা দেশেই এই ব্যবসার ব্যাপক চাহিদা রয়েছে।

দিনে দিনে এই ব্যবসার বাজার ব্যাপক ভাবে প্রসারিত হচ্ছে। যে কোন উদ্যোক্তা এই ব্যবসাটিকে পেশা হিসেবে বেছে নিতে পারেন। এই ব্যবসায় ঝুকিঁর সম্ভাবনা কম থাকায় বর্তমানে অনেক উদ্যোক্তা এই ব্যবসাটি শুরু করতে আগ্রহী হয়ে উঠছেন।

কিভাবে একটি লেপ তোষকের দোকান শুরু করবেন: আপনার নিকটস্থ বাজার বা মার্কেটে একটি দোকান নির্ধারণ করতে হবে। তারপর দোকান ভালো ভাবে ডেকোরেশন করতে হবে। সাইজ ও পণ্য অনুযায়ী কাপড় কেটে মেশিনের সাহায্যে চারপাশ সেলাই করতে হবে। সেলাই করার সময় তুলা ভরার জন্য একপাশ খালি রাখতে হবে।

তারপর ঐ খালি স্থান দিয়ে তুলা ভরে লেপ, তোষক, বালিশ ইত্যাদি তৈরী করা হয়। গ্রাহকের চাহিদা অনুযায়ী অর্ডার নিয়ে বিভিন্ন সাইজের পণ্য তৈরী করতে হবে। অভিজ্ঞ কারিগর নিয়োগ করেও এই ব্যবসাটি শুরু করা যায়।

সম্ভাব্য বিনিয়োগ: আমাদের দেশের সাধারনত কার্পাস তুলার দাম ১০০ থেকে -১৫০ টাকা, অন্যদিকে জুম তুলা ১৫০-১৮০ টাকা প্রতি কেজি। ভালো মানের সিঙ্গেল লেপ বানাতে খরচ হতে পারে ৭০০-৮০০ টাকা। এবং ডাবল লেপ বানাতে প্রায় ১০০০+ টাকা। তাছাড়া দোকান ভাড়া আছে যা এক এক জায়গায় এক এক রকম।

সম্ভাব্য আয়: প্রতিটি সিঙ্গেল লেপ বিক্রি হয় ১০০০ থেকে ১২০০ টাকা এবং প্রতিটি ডাবল লেপ বিক্রি হয় প্রায় ১৫০০ টাকা। মানে প্রতিটি বিক্রিতে ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা লাভ করা যায়।

More News Of This Category